বৈজ্ঞানিক গবেষণায় নৈতিকতা প্রয়োজন

বৈজ্ঞানিক গবেষণায় নৈতিকতা র্শীষক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয় ১৮ ডিসেম্বর ২০২৩ সকাল ৯টা হতে দুপুর ১২টা পর্যন্ত রাজধানীর আহছানউল্লা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্বিবিদ্যালয়ের ভিসি সেমিনার কক্ষে। বিজ্ঞান গবেষণাকে অধিকতর জনপ্রিয় ও প্রায়োগিক এর উপর গুরুত্ব দিয়ে বক্তব্য বলেন দেশ বরেণ্য বিজ্ঞান গবেষকবৃন্দ। বিজ্ঞানে গবেষণা, নীতিশাস্ত্রের গুরত্ব, গবেষণার ক্ষেত্রে নীতি নৈতিকতা: বস্তুনিষ্ঠতা, বৈজ্ঞানিক গবেষণার ক্ষতি, স্বার্থের দ্বন্দ, মেধা সম্পত্তি অধিকার, বৈজ্ঞানিক গবেষণা ক্ষেত্রে বিনামূল্যে তথ্য সম্মতি ও অপ্রয়োজনীয় প্রকাশনা এবং প্লেরারিজম এসব বিষয়ে যুক্তি পূর্ণ আলোকপাত করেন বিশেষজ্ঞ ব্যক্তিরা। আালোচকদ্বয়ের দু’টি কী-নোট পেপারের সূত্র ধরে এসব আলোচনা উঠে আসে। আমেরিকার ডার্ট মাউন্ট ইউনিভার্সিটির শিক্ষক প্রফেসর ড. আতাউল করিম এর প্রেজেন্টেশনে স্থান পায় বৈজ্ঞানিক গবেষণার ইতিহাস ও পর্যালোচনা, গবেষণায় সুনাম, বাংলাদেশ প্রেক্ষিত এবং নীতি শাস্ত্র পর্যালোচনা।

সেমিনারে দুটি কীনোট পেপার উপস্থাপন করেন আমেরিকার ডার্ট মাউন্ট ইউনিভার্সিটির শিক্ষক প্রফেসর ড. আতাউল করিম ও আহছান উল্লা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের এসোসিয়েট প্রফেসর ড. তাসকিন জামাল।

ঢাকা আহছানিয়া মিশন ও নর্থ আমিরিকান বাংলাদেশি কমিউনিটির যৌথ প্রতিষ্ঠান এথিক্স এডুকেশন ফর সাসটেইনেবল ডেভেলপমেন্ট এবং আহছানউল্লা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ফজলুল হক লাইব্রেরীর যৌথ উদ্যোগে সেমিনারটির আয়োজন করে।সেমিনারে প্রধান অতিথি ছিলেন দেশ বরেণ্য বিজ্ঞানী প্রফেসর ড. শমসের আলী, সাবেক ভাইস চ্যান্সেলর উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়, সভাপতি ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষক প্রয়েফসর ড. আবু তৈয়ব আবু আহমেদ, বিশেষ অতিথি ছিলেন আহছান উল্লা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. ফাজলী ইলাহি ও গেস্ট অব অনার ছিলেন আহছান উল্লা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো- ভিসি ড. মাহবুবুর রহমান সেনিারের সঞ্চালকের দায়িত্ব পালন করেন এথিক্স এডুকেশন ফর সাসটেইনেবল ডেভেলপমেন্ট সিইও কাজী আলী রেজা।অত্র অনুষ্ঠানে বোর্ট অব থ্যাঙ্কস দেন আহছানউল্লা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের  ফজলুল হক লাইব্রেরীর লাইব্রেরিয়ান ড. জিল্লুর রহমান।

সেমিনারে প্রধান অতিথি প্রফেসর শমসের আলী বলেন, প্রফেসর করিম যে প্রেজেনটেশন উপস্থাপন করেছেন তা সর্বৈবভাবে সত্য। আমি তার সাথে একমত পোষন করছি। এবং তার সাথে যোগ করতে চাই যে বিজ্ঞান গবেষণা ও প্রযুক্তির উৎকর্ষে মুসলিম মনিষাদের অবদান রয়েছে। তার মূল উৎস হচ্ছে পবিত্র কোরআন।
বিশেষ অতিথি ড. ফাজলী ইলাহি বলেন, আমি সকলকে শুভেচ্ছা জানাই। আমি আনন্দিত যে আমাদের বোর্ড অব ট্রস্টিজের দুজন ট্রস্টি প্রফেসর ড. শমসের আলী ও প্রফেসর ড. আবু তৈয়ব আবু আহমেদকে পেয়ে। প্রফেসর ড. করিম বিজ্ঞান গবেষণার ধারাবাহিক চিত্র তুলে ধরেছেন। আমাদের দেশে বৈজ্ঞানিক গবেষনায় বেশি উৎসাহ নাই। প্রনোদনা দেওয়া হয় না। বৈজ্ঞানিক গবেষণায় নৈতিকতা প্রয়োজন।ই তিনি আরো বলেন, নৈতিকতা দ্বারা বিশ্বকে ধ্বংসের হাত থেকে বাঁচাতে AI-এর কর্মে সীমাবদ্ধ হওয়া উচিত। আমাদের সামাজিক ফাটল মেরামত করার জন্য কমিটি এবং কমিটি বাইরের দায়িত্ব নিতে হবে। আহসানউল্লাহ বিশ্ববিদ্যালয় এই বিষয়ে অভিভবকের দায়িত্ব নেওয়া উচিত।

রিপোর্ট
জাহাঙ্গীর যুবরাজ
প্রোগ্রাম অফিসার
১৮/১২/২০২৩